ঢাকা, শুক্রবার ১৪ই জুন ২০২৪ , বাংলা - 

নাড়ির টানে স্বস্তিতে ঘরে ফিরছে মানুষ

ষ্টাফ রিপোটার।।ঢাকাপ্রেস২৪.কম

2024-04-08, 12.00 AM
নাড়ির টানে স্বস্তিতে ঘরে ফিরছে মানুষ

প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়ার জন্য নাড়ির টানে গ্রামে ছুটছেন যাত্রীরা। এর ফলে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যাত্রীর চাপের পাশাপাশি বেড়েছে যানবাহনের চাপ। তবে চাপ বাড়লেও মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জ অংশে কোথাও কোনো যানজটের সৃষ্টি হয়নি। যাত্রীরা স্বাচ্ছন্দ্যেই তাদের গন্তব্যস্থলে যেতে পারছেন। সোমবার (৮ এপ্রিল) সকালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শিমরাইল মোড়ে সরেজমিনে গিয়ে এমনই চিত্র লক্ষ্য করা যায়।চট্টগ্রাম যাওয়ার উদ্দেশ্যে শিমরাইল মোড়ে দাঁড়িয়ে আছেন আল আমিন নামের এক যাত্রী। তার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, অন্যান্যবারের চেয়ে এবার মহাসড়ক একেবারে ফাঁকা মনে হচ্ছে। বাসের টিকিট পেতে তেমন সমস্যায় পড়তে হয়নি। কিছুক্ষণের মধ্যেই বাস চলে আসবে।আল আমিনের মতো একই সুরে বলেন আব্দুর রহিম নামের আরেক যাত্রী। তিনি বলেন, ঈদকে কেন্দ্র করে সবসময় মহাসড়কে যানজটের শঙ্কা থাকলেও এবার তা দেখছি না। আশা করছি, নির্বিঘ্নেই গন্তব্যস্থলে যেতে পারবো।

 

মো. সুমন মিয়া নামের হানিফ পরিবহনের এক বাসচালক বলেন, সায়েদাবাদ থেকে অল্প সময়েই শিমরাইল মোড় এসেছি। মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে পয়েন্টে পুলিশ থাকায় কোথাও কোনো যানজট নেই৷ আবার মহাসড়কের কোথাও কোনো খানাখন্দ না থাকায় আমাদেরও বাস চালাতে কোনো সমস্যা হচ্ছে না।কাঁচপুর হাইওয়ে থানার শিমরাইল ক্যাম্পের টিআই একেএম শরফুদ্দিন বলেন, যাত্রীদের ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে আমরা মহাসড়কে সার্বক্ষণিক কাজ করে যাচ্ছি। আশা করছি এবারের ঈদযানারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ-সার্কেল) শেখ বিল্লাল হোসেন বলেন, মহাসড়কে চুরি, ছিনতাই ঠেকাতে আমরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছি। মহাসড়কের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট আমরা নজরদারির মধ্যে রেখেছি।ত্রা অন্যান্যবারের তুলনায় স্বাচ্ছন্দ্যময় এবং নিরাপদ হবে।