ঢাকা, শুক্রবার ১৪ই জুন ২০২৪ , বাংলা - 

গোপনে ইজ়রায়েলে অস্ত্র পাঠাচ্ছে ভারত?

ডেস্ক রিপোটার।। ঢাকাপ্রেস২৪.কম

2024-05-19, 12.00 AM
গোপনে ইজ়রায়েলে অস্ত্র পাঠাচ্ছে ভারত?

পশ্চিম এশিয়ায় যুদ্ধ শুরু হয়েছে প্রায় সাত মাস আগে। ২০২৩ সালের ৭ অক্টোবর প্যালেস্টাইনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছিল ইজ়রায়েল। এখনও যুদ্ধ থামেনি। ইজ়রায়েল এবং হামাসের সংঘর্ষে প্রতি দিনই রক্তাক্ত হচ্ছে পশ্চিম এশিয়া।ইজ়রায়েলি হামলায় এখনও পর্যন্ত গাজ়ায় ৩৫ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ। একাধিক দেশ এই হামলার বিরোধিতা করেছে।ভারত এই যুদ্ধে বরাবরই নিরপেক্ষ অবস্থান গ্রহণ করে এসেছে। কিন্তু সম্প্রতি ভারতের বিরুদ্ধে ইজ়রায়েল প্রসঙ্গে উঠেছে গুরুতর অভিযোগ। যা নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে।গাজ়ায় মুহুর্মুহু হামলা চালানো সেই ইজ়রায়েলেই নাকি টন টন অস্ত্র পাঠাচ্ছে ভারত! এমনটাই অভিযোগ এনেছে স্পেন। শুধু তা-ই নয়, ভারত থেকে অস্ত্র বহনকারী জাহাজ আটকেও দেওয়া হয়েছে স্পেনের উপকূলে।ডেনমার্কের পতাকাবাহী একটি জাহাজ ভূমধ্যসাগরের উপর দিয়ে ইজ়রায়েলের দিকে যাচ্ছিল। জাহাজটি ভারতের চেন্নাই বন্দর থেকে রওনা দিয়েছিল। উল্লেখ্য, ভারত থেকে অস্ত্র এবং বিস্ফোরক পদার্থ পরিবহণকারী অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বন্দর চেন্নাই।স্পেনের কাছে পৌঁছে ওই জাহাজের নাবিকেরা ভূমধ্যসাগর সংলগ্ন স্পেনীয় উপকূলে জাহাজটি নোঙর করতে চেয়েছিলেন। পরিকল্পনা ছিল, স্পেনে কিছু দিন বিশ্রাম নিয়ে, নতুন করে জ্বালানি ভরে আবার রওনা দেওয়ার।স্পেন তাতেই ‘না’ করে দিয়েছে। তাদের বিদেশমন্ত্রী হোসে ম্যানুয়েল আলবারেস বুয়েনো বলেছেন, ‘‘আমরা এই প্রথম কোনও বিদেশি জাহাজকে ‘না’ বলেছি। কারণ, এই জাহাজে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র আছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। আমরা আরও জানতে পেরেছি যে অস্ত্রগুলি ইজ়রায়েলে পাঠানো হচ্ছে।’’বুয়েনো জানিয়েছেন, গত ২১ মে জাহাজটি স্পেনের বন্দরে নোঙর করার অনুমতি চেয়েছিল। তিনি আরও বলেন, ‘‘ভবিষ্যতে অন্য যে কোনও দেশের যে কোনও জাহাজকে একই কারণে আটকাবে স্পেন। এটাই আমাদের নীতি। কারণ, পশ্চিম এশিয়া শান্তি চায়, আর অস্ত্র চায় না।’’গার্ডিয়ানের রিপোর্ট অনুযায়ী, ২৭ টন অস্ত্র ওই জাহাজে করে চেন্নাই থেকে ইজ়রায়েলে পাঠানো হচ্ছিল। তবে কি ভারত যুদ্ধের আবহে ইজ়রায়েলে অস্ত্র সরবরাহ করছে? তাতেই বাধা দিল নয়াদিল্লির বন্ধু স্পেন?ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকের কোনও সূত্র এই অভিযোগ নিয়ে মুখ খুলতে চায়নি। তাদের বক্তব্য একটাই, কোনও আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করা হয়নি ভূমধ্যসাগরে। এ বিষয়ে ইজ়রায়েলেরও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি।পশ্চিম এশিয়ার যুদ্ধে স্পেনের অবস্থান যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। প্রথম থেকেই গাজ়ায় ইজ়রায়েলের যাবতীয় হামলার বিরোধিতা করে এসেছে স্পেন। পশ্চিম এশিয়ায় শান্তি স্থাপনের দাবি জানিয়েছে তারা।যুদ্ধের শুরুতেই ইজ়রায়েলে অস্ত্র বিক্রি করা বন্ধ করে দিয়েছিল স্পেন। সেই সঙ্গে প্যালেস্টাইনের স্বীকৃতি দেওয়ার কথাও তারা বলেছে বার বার। অর্থাৎ, প্রথম থেকেই স্পেন ইজ়রায়েলিদের বিরুদ্ধে।পশ্চিম এশিয়ার দ্বন্দ্বে ভারত বরাবর নিরপেক্ষ অবস্থানে থাকলেও ইজ়রায়েলের সঙ্গে তাদের বাণিজ্যিক সম্পর্ক রয়েছে। ইজ়রায়েলের থেকে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র কেনে ভারতই। সেই সূত্রেই ভারত থেকে অস্ত্রশস্ত্রের উপাদান ইজ়রায়েলে যাচ্ছিল কি না, তা নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে নানা মহলে।অন্য একটি সূত্রে অভিযোগ, ভারত ‘গোপনে’ অস্ত্র সরবরাহ করতে চাইছে ইজ়রায়েলে। কারণ, ভারত থেকে ইজ়রায়েলে যাওয়ার সহজ পথ না নিয়ে ঘুরপথে জাহাজ পাঠানো হয়েছে।লোহিত সাগরীয় অঞ্চল দিয়েই সমুদ্রপথে ইজ়রায়েলে যাওয়া হয়ে থাকে। কিন্তু চেন্নাই থেকে রওনা দিয়ে জাহাজটি সেই পথ নেয়নি বলে দাবি। কেন ঘুরপথে ভূমধ্যসাগর দিয়ে ইজ়রায়েলে পৌঁছনোর চেষ্টা করা হচ্ছিল, উঠেছে সেই প্রশ্নও। আনন্দবাজার পত্রিকার সৌজন্য।।