ঢাকা, শুক্রবার ১৪ই জুন ২০২৪ , বাংলা - 

পাক তারকার সঙ্গে সম্পর্কে দুই বাঙালি নায়িকা!

ডেস্ক রিপোটার।। ঢাকাপ্রেস২৪.কম

2024-04-27, 12.00 AM
পাক তারকার সঙ্গে সম্পর্কে দুই বাঙালি নায়িকা!

আলাপ হয়েছিল পেশার খাতিরে। তার পর নাকি প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। সেখানে বাধা হয়নি দুই দেশের সীমান্ত। সুস্মিতা সেন থেকে বিপাশা বসু, রণবীর কপূর— বলিপাড়ার এমন বহু তারকা রয়েছেন, যাঁদের নাম পাকিস্তানের ক্রিকেটার থেকে অভিনেতাদের সঙ্গে জড়িয়েছে।পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে নাম জড়িয়েছিল অভিনেত্রী রেখার। এমনকি এক সংবাদপত্রে তাঁদের বিয়ে নিয়েও চর্চা শুরু হয়েছিল।কানাঘুষো শোনা যায়, ১৯৮৫ সালের এপ্রিল মাসে প্রায় এক মাসের জন্য মুম্বই গিয়েছিলেন ইমরান। সেখানে তাঁর আলাপ হয়েছিল রেখার সঙ্গে। তার পর মাঝেমধ্যেই নাকি দু’জনকে একসঙ্গে কখনও সমুদ্রসৈকতের ধারে, কখনও বা কোনও নাইটক্লাবে দেখা যেত।বলিপাড়ার জনশ্রুতি, রেখার বাড়িতেও নাকি ইমরানকে যেতে দেখা গিয়েছিল। রেখা এবং ইমরান যে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন, তা নিয়ে বলিপাড়ার অন্দরমহলে ফিসফাস শুরু হয়। এমনকি ইমরানের সঙ্গে যে রেখা সাত পাকে বাঁধা পড়তে চলেছেন, সেই জল্পনাও ছড়িয়ে পড়ে। পরে অবশ্য সময়ের সঙ্গে সঙ্গে দুই তারকার সম্পর্ক নিয়ে জলঘোলা থেমে যায়।শুধুমাত্র রেখা নয়, বলিপাড়ার আরও দুই অভিনেত্রীর সঙ্গে ইমরানের নাম শোনা গিয়েছিল। বলিপাড়ায় কানাঘুষো শোনা যায়, শাবানা আজ়মির সঙ্গে নাকি সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন ইমরান। যদিও এই প্রসঙ্গে দু’জনের কেউই কোনও মন্তব্য করেননি।পাকিস্তানের ক্রিকেট দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন ইমরান। ১৯৭৯ সালের নভেম্বর মাসে খেলার সূত্রেই বেঙ্গালুরু গিয়েছিলেন ইমরান। সেই সময় বেঙ্গালুরুর ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পোশাক বদল করার ঘরে (ড্রেসিং রুম) ইমরানের ২৭তম জন্মদিন পালন করা হয়েছিল। সেখানে উপস্থিত ছিলেন পাকিস্তান ক্রিকেট টিমের অন্য সদস্যেরাও।কানাঘুষো শোনা যায়, ইমরানের ২৭তম জন্মদিনে তাঁর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বলি অভিনেত্রী জ়ীনত আমন। জ়ীনতের সঙ্গে নাকি সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন ইমরান। কিন্ত এই বিষয়ে প্রকাশ্যে কেউ-ই কিছু জানাননি।১৯৯৫ সালে সাত পাকে বাঁধা পড়েছিলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটার ওয়াসিম আক্রম। কিন্তু ২০০৯ সালে তাঁর স্ত্রী মারা যান। চার বছর পর শানিয়েরা আক্রম নামে অস্ট্রেলিয়ার এক সমাজকর্মীকে বিয়ে করেন ওয়াসিম। তবে বিবাহবিচ্ছেদের আগে এক বাঙালি অভিনেত্রীর সঙ্গে নাম জড়িয়ে পড়েছিল ওয়াসিমের।২০০৮ সালে একটি রিয়্যালিটি শোয়ের সেটে ওয়াসিমের সঙ্গে দেখা হয় বলি অভিনেত্রী তথা ব্রহ্মাণ্ডসুন্দরী সুস্মিতা সেনের। সুস্মিতা এবং ওয়াসিম দু’জনেই ওই শোয়ের বিচারকের আসনে ছিলেন। সেই সময়েই দু’জনের বন্ধুত্ব হয়।কানাঘুষো শোনা যায়, স্ত্রীর মৃত্যুর পর সুস্মিতার সঙ্গে ওয়াসিমের বন্ধুত্ব আরও গভীর হয়। দু’জনকে একসঙ্গে নানা জায়গায় দেখা যেতে শুরু করে। বলিপাড়ার একাংশের দাবি, দুই তারকা সম্পর্কে ছিলেন। এমনকি একত্রবাসও করেছেন তাঁরা। দু’জনের বিয়ের খবরও ছড়িয়ে পড়তে থাকে।পরে অবশ্য সুস্মিতার প্রসঙ্গে ওয়াসিমকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেছিলেন, ‘‘এই রটনাগুলো অস্বীকার করতে করতে আমি ক্লান্ত হয়ে পড়েছি। আমি চাই এই আলোচনায় বরাবরের মতো ইতি টানা হোক।’’সুস্মিতা সমাজমাধ্যমে লিখেছিলেন, ‘‘ওয়াসিম আমার খুব ভাল বন্ধু। আমার জীবনে কোনও ভাল বন্ধু থাকা মানেই যে তাঁর সঙ্গে আমার সম্পর্ক তৈরি হবে এমন কোনও অর্থ নেই। যদি আমার কাউকে পছন্দ হয় তা হলে নিজে থেকেই সকলকে জানাব।’’২০১৭ সালে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় শাহরুখ খান অভিনীত ‘রইস’। শাহরুখের বিপরীতে এই ছবিতে অভিনয় করেন পাকিস্তানের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাহিরা খান। একই বছরে মাহিরার একটি ছবি সমাজমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। তার পরেই নাকি মানসিক অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি।‘রইস’ মুক্তির বছরে সমাজমাধ্যমে মাহিরা এবং বলি অভিনেতা রণবীর কপূরের একটি ছবি ছড়িয়ে পড়ে। সেই ছবিতে লন্ডনের রাস্তায় ধূমপান করতে দেখা যাচ্ছিল দুই তারকাকে। এই ছবিটি সর্বত্র ছড়িয়ে পড়তে রণবীরের সঙ্গে মাহিরার সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা শুরু হয়ে যায়।এক পুরনো সাক্ষাৎকারে মাহিরা বলেছিলেন, ‘‘রণবীর শুধুমাত্র আমার বন্ধু। কিন্তু আমাদের ছবি নিয়ে এমন ভাবে আমায় আক্রমণ করা হল যে আমি অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। বিশ্বাসের ভিতটাই নড়ে গিয়েছিল আমার। মানসিক অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়ায় মনোবিদের সঙ্গে দেখাও করেছিলাম।’’২০১৬ সালে ‘সনম তেরি কসম’ ছবির হাত ধরে বলিপাড়ায় আত্মপ্রকাশ করেন পাকিস্তানি অভিনেত্রী মাওয়ারা হোকেন। ছবি মুক্তির বছরেই রণবীরের সঙ্গে নাম জড়িয়ে পড়ে তাঁর।বলি অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কইফের সঙ্গে রণবীরের সম্পর্ক নিয়ে বলিপাড়ায় কম জলঘোলা হয়নি। কানাঘুষো শোনা যায়, ক্যাটরিনার সঙ্গে সম্পর্কে ইতি টানার পর নাকি মাওয়ারার সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন রণবীর।২০১৬ সালে বার্লিনের রাস্তায় রণবীর এবং মাওয়ারাকে একসঙ্গে ঘুরতে দেখা যায়। তার পরেই দুই তারকার সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে ওঠে। যদিও পরে অভিনেত্রী জানিয়েছিলেন, রণবীরের সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক ছিল না। তাঁরা শুধুমাত্র ভাল বন্ধু ছিলেন।২০১৪ সালে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় ‘ক্রিচার ৩ডি’। এই ছবিতে বাঙালি অভিনেত্রী বিপাশা বসুর বিপরীতে অভিনয় করেন পাকিস্তানের তারকা ইমরান আব্বাস। বলিপাড়ার অন্দরমহলে কান পাতলে শোনা যায়, ইমরানের সঙ্গে নাকি সম্পর্কে ছিলেন বিপাশা।বলিপাড়া সূত্রে খবর, উটিতে ‘ক্রিচার ৩ডি’ ছবির শুটিং চলাকালীন বিপাশা এবং ইমরানের বন্ধুত্ব হয়। শুটিং শেষ হওয়ার পর নাকি ইমরানের সঙ্গে অধিকাংশ সময় কাটাতেন অভিনেত্রী। তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা শুরু হলেও দু’জনের কেউই এই প্রসঙ্গে মুখ খোলেননি।২০১৪ সালে কুণাল দেশমুখের পরিচালনায় প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় ‘রাজা নটবরলাল’। এই ছবিতে বলি অভিনেতা ইমরান হাশমির বিপরীতে অভিনয় করেন পাকিস্তানের অভিনেত্রী হুমাইমা মালিক। হুমাইমা নাকি ইমরানকে ডেট করেছিলেন, এমনটাই কানাঘুষো চলতে থাকে। পরে অবশ্য দুই তারকাই জানিয়েছিলেন যে তাঁদের মধ্যে পেশাগত সম্পর্ক ছাড়া অন্য কোনও সম্পর্ক নেই।কানাঘুষো শোনা যায়, সলমন খানের সঙ্গে সম্পর্কে আসবেন বলেই পাকিস্তানি অভিনেত্রী অভিনয়জগতে পা রাখেন। বলি অভিনেত্রী সঙ্গীতা বিজলানির সঙ্গে নাকি সলমনের বিয়ে ঠিক হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু সেই সময় সোমির সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে থাকার কারণে অভিনেতার বিয়ে ভেঙে যায়।আট বছর নাকি সলমনের সঙ্গে সম্পর্কে ছিলেন সোমি। অভিনেত্রী জানিয়েছিলেন, সেই সম্পর্ক সুখের ছিল না। মাঝেমধ্যেই শারীরিক এবং মানসিক হেনস্থার শিকার হতেন তিনি। তাই সেই সম্পর্কে ইতি টেনেছিলেন সোমি।২০১৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘টোটাল সিয়াপ্পা’ ছবিতে বলি অভিনেত্রী ইয়ামি গৌতমের সঙ্গে অভিনয় করেন পাকিস্তানের অভিনেতা আলি জাফর। বলিপাড়ায় দুই তারকার সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন শোনা যেতে থাকে। কিন্তু পরে তাঁরা জানিয়েছিলেন, তাঁরা একে অপরকে শুধুমাত্র সহ-অভিনেতার চোখেই দেখেন।পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটার শোয়েব আখতারের সঙ্গে নাম জড়িয়ে পড়ে বলি অভিনেত্রী সোনালি বেন্দ্রের। ২০১৯ সালে শোয়েব জানিয়েছিলেন, সোনালির ছবি নাকি নিজের মানিব্যাগে রাখতেন শোয়েব। সোনালিকে বিয়েও করতে চেয়েছিলেন তিনি। শোয়েব জানিয়েছিলেন, অভিনেত্রী যদি বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন তবে তাঁকে অপহরণ করবেন। শোয়েবের এই মন্তব্যের পর সর্বত্র আলোচনার ঝড় ওঠে।সোনালির সঙ্গে শোয়েবের সম্পর্ক নিয়ে কানাঘুষো বাড়তে থাকলে শোয়েব জানিয়েছিলেন, সোনালি যে ভাবে ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধ করেছেন, তা দেখে অভিনেত্রীর একনিষ্ঠ অনুরাগী হয়ে উঠেছেন তিনি। ব্যক্তিগত স্তরে সোনালির সঙ্গে তাঁর কোনও সম্পর্ক নেই বলেও দাবি করেন শোয়েব।