ঢাকা, মঙ্গলবার ২৫ই জুন ২০২৪ , বাংলা - 

হয়রানী থেকে বাঁচতে প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ চান বাউল শিল্পী

স্টাফ রিপোর্টার ।।ঢাকাপ্রেস২৪.কম

2023-09-17, 12.00 AM
 হয়রানী থেকে বাঁচতে প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ চান বাউল শিল্পী

ঢাকা: সাবেক স্বামী শফিক কতৃক প্রাণনাশের হুমকি ও হয়রানী থেকে বাঁচতে প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহায়তা চেয়েছেন বাউল শিল্পী পাখি।আজ রবিবার দুপুরের সেগুনবাগিচা বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনে তিনি এ সহায়তা চান।পাখি সরকার বলেন, আমি পাখি সরকার বাংলাদেশের একজন বাউল শিল্পী। আমি প্রায় দুই যোগ ধরে  দেশ বিদেশে বাউল গান পরিবেশন করে টাকা উপার্জন করি। গান করে টাকা উপার্জন করাই আমার একমাত্র পেশা। আমার সাবেক স্বামী শফিক একজন সৌদি প্রবাসী।  শফিকের সাথে ২২.৩.২০১৩ তারিনখ ৮,০০,০০০/—(আট লক্ষ) দেনমোহর ধার্য্য করে বিবাহ সম্পন্ন হয়। দাম্পত্য জীবনে আমাদেরএকটি ছেলে সন্তান হয়। ছেলেটির বর্তমানে নাকে টিউমার জনিত কারণে অন্ধ হয়ে আমার সাথে আছে।  আমার ছেলে অসুস্থ হয়ে পড়লেও সে কোন খোঁজ খবর নেয়নি। 

 

তিনি বলেন, এছাড়াও তার আগে একটি বউ আছে সেটিও সে গোপন করেছিল। সে আমাকে নানাভাবে হয়রানী ও নির্যাতন করায় গত ০২.১০.২০২০তারিখ শফিককে তালাকের নোটিশ প্রদান করি। উক্ত তালাক সিটি কর্পোরেশন শালিশ কর্তৃক কার্যকর হয়।  তালাক কার্যকর হলে যথা সময়ে আমি মোঃ আমির হোসেনকে বিবাহ করে দাম্পত্য জীবন শুরু করি। আমার দাম্পত্য জীবনে বর্তমান স্বামীর ঔরষে   ১টি ছেলে সন্তান জন্ম গ্রহণ করেন। আমার প্রথম স্বামী শফিক ২য় বিবাহ মেনে নিতে না পারায় আক্রোশের বসবতি হয়ে সৌদি আরব থেকে তার নিজের ছবি ব্যবহার ’নরসিংদী শহর’ নামীয় ফেসবুক আই ডি একাউন্ট খুলে বাদিনীকে নিয়ে বিভিন্ন কু—রুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে বিভিন্ন জনের সাথে আমার  ছবি কাট পিছ পূর্বক এডিট করে বিভিন্ন পোষ্ট আপলোড করে। এমনকি আমার নিজের সন্তানকে নিয়ে আজে বাজে লিখে পোষ্ট দেয়। উহাতে আমার মান সম্মানহানী সহ বিব্রত অবস্থায় পরি। এ সংক্রান্তে আমি মিরপুর মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করি। যাহার নং—১৮৫৭ তারিখ—২৩.১০.২০২২ ইং। 

তিনি আরো বলেন, আমার সাবেক স্বামী অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার হীনমানষে আমাকে তার আয়ত্বে আনার জন্য সে সৌদি আরব থাকাবস্থায় বাদিনীকে টেলিফোনের মাধ্যমে বিভিন্নভাবে জীবন নাশের হুমকি দিয়ে আসতে থাকে। এক পর্যায়ে আমি কোন পালাগানের অনুষ্ঠানের স্টেজে গান পরিবেশন করতে উঠলে অথবা মিরপুরস্থ বাউল সমিতিতে হাজির হলে জনৈক অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির মাধ্যমে ঢাকা শহরের বখাটে ছেলেদেরকে দিয়ে আমাকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুড়ে বাউল সমিতিতে যেতে বাধা দেয়। বাউল সমিতির নেতাদেরও নানাভাবে হুমকি দেয় ফলে তারাও বিভিন্ন স্টেজ শো’র প্রোগ্রাম বন্ধ করে দেয়। যাতে আমি বাউল গানের পরিবেশনের কোন কন্ট্রাক্ট করতে না পারি সে ব্যবস্থাও করে। 

আমি এহেন পরিবেশ পরিস্থিতিতে অসহায় হয়ে আইনগত প্রতিকার পাওয়ার জন্য স্থানীয় থানা কর্মকর্তাদের দারস্থ্য হলে আইনগত কোন প্রতিকার দিতে পারে নাই। বাধ্য হয়ে আমি মহান পেশা বাউল গানের স্টেজ বন্ধ করে দিয়ে বেকার হয়ে সংসার পরিচালনা করছি। 

সমাজ সম্মলনের পাখি সরকার জানান, গত আগস্ট’২৩ মাসের ১ম সপ্তাহের শেষের দিকে আমার সাবেক স্বামী সৌদি আরব থেকে ছুটিতে বাংলাদেশে আসেন। বাংলাদেশে এসে বিভিন্ন লোকের মাধ্যমে আমাকে বর্তমান ঠিকানা ঘটনাস্থল সনাক্ত করে তার ছেলে সন্তানকে দেখাশুনার উছিলা করে গত ইং ১২.৮.২০২৩ তারিখ সন্ধ্যা অনুঃ ৭ ঘটিকার সময় আমার বর্তমান স্বামীর অনুপস্থিতিতে ঘটনাস্থল বাসায় প্রবেশ করে। এক পর্যায় আমার মাতা এবং সন্তান সহ এক রুমে থাকাবস্থায় অন্য রুমে বসে বাদিনীর সাথে ছেলের খোজ খবর নেওয়ার  সময় আমি কিছু বুঝে উঠার পূর্বেই হঠাৎ করে রুমের দড়জা লক করে দিয়ে আমাকে জোর পূর্বক ধর্ষণ চেষ্টা করে এবং মারধর করে।  আমার শরীরে বিভিন্নস্থানে নীলা ফুলা জখম করে।  আমি এ ব্যাপারে নারী শিশু নির্যাতন দমন আদালতে মামলা দায়ের করি । মামলাটি বর্তমানে সিআইডিতে তদন্তনাধীন আছে।  

বর্তমানে আমার সাবেক স্বামী আমাকে নানাভাবে হয়রানী করছে। আমার লোকদের নানাভাবে হয়রানী করছে। আমি যাতে গান না গাইতে পারি সে জন্য আমার সাথে যারা পালা গান করেন তাদেরকে নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে। এমনকি আমার সাথে গান করতে চাইলে তাদের উপর হামলা করাচ্ছে। কয়েকদিন আগে বাউল শিল্পী  সুজন সরকার আমাকে একটি গানের প্রোগ্রামে নিতে চাইলে তার উপরও হামলা করা হয়। এ ব্যাপারে সে দারুস সালাম থানায় জিডি করেছেন।  তিনি সৌদি আরবে থাকলেও মিরপুরে বিভিন্ন প্রভাবশারীকে মেনেজ করে আমাকে সমিতির সদস্য থেকে গত ৬ মাস আগে বাদ দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। আমি একজন জনপ্রিয় শিল্পী হওয়া সত্বেও আমি কোন অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারিনা। এমনকি জীবন নিয়ে সন্তানদের নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি অনুরোধ আমাকে আমার পেশা তথা বাউল গান যাতে করতে পারি এবং পরিবার নিয়ে শান্তিতে বসবাস করতে সে ব্যাপারে প্রযোজনীয় সহায়তা করার আকুল আবেদন জানাচ্ছি।