ঢাকা, শুক্রবার ৭ই আগস্ট ২০২০ , বাংলা - 

নাগরিকত্ব বিল:প্রতিবাদে উত্তাল আসাম

প্রতিবেশি ডেস্ক।। ঢাকাপ্রেস২৪.কম

মঙ্গলবার ১০ই ডিসেম্বর ২০১৯ সকাল ০৬:৩০:৫৫

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস করেছে ভারত। গতকাল সোমবার দেশটির লোকসভায় বিতর্কিত এ বিলটি পাস হয়। এ বিলের প্রতিবাদে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে বিক্ষোভ হচ্ছে। বিলটির প্রতিবাদে অনেক ভারতবাসীই রাস্তায় নেমেছেন। তবে আসামে এ বিক্ষোভ তুমুল আকার ধারণ করেছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজ জানায়,আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে আসামের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। উত্তর-পূর্ব ছাত্র সংস্থা (নেসো) আসামে বিক্ষোভের ডাক দেয়। তারা বিলটির বিরোধিতা করে ১১ ঘণ্টার হরতাল ডেকেছে।

গতকাল সোমবারও আসামের বিভিন্ন জায়গায় বিলটির বিরোধিতা করে বিক্ষোভ হয়েছে। নেসো ছাড়াও সর্ব কোচ রাজবংশী ছাত্র সংসদ (একেআরএসইউ), সর্ব আসাম ছুটিয়া ছাত্র ইউনিয়ন ও সর্ব মোরান ছাত্র ইউনিয়নও হরতালের ডাক দিয়েছে।

কংগ্রেসসহ বিরোধী দলগুলোর প্রবল আপত্তি এবং উত্তর-পূর্বে ব্যাপক বিক্ষোভকে উপেক্ষা করেই পাস হলো নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। সোমবার লোকসভায় ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বিলটি পেশ করেন।

পরে ৯০ মিনিট ধরে চলা উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের পর ২৯৩-৮২ ভোটের ব্যবধানে এটি পাস হয়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে বিলটিকে ‘মুসলিমবিরোধী’ আখ্যা দেওয়া হয়েছে।

এর আগে সকাল থেকেই আসামসহ একাধিক রাজ্যে এই বিলের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে পড়েছেন বিক্ষোভকারীরা। ভারতীয় টেলিভিশন গণমাধ্যম এনডিটিভি তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ২০১৯ ঘিরে উত্তপ্ত হয়েছে ভারতের উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলো। আসামে প্রতিবাদের নেতৃত্ব দিচ্ছে ‘অল আসাম স্টুডেন্টস ইউনিয়ন’।

লোকসভায় তৃণমূল নেত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘স্বাধীনতার ৭২ বছর পর হঠাৎ নাগরিকত্ব নির্ধারণ করা যায় না। এই এনআরসি আমি মানি না। নাগরিক তালিকায় যদি জানা যায়, নাগরিকরা ভুয়া, তাহলে তো তাদের ভোটে জেতা সরকারও ভুয়া। তাহলে মোদিও ভুয়া, তার সরকারও ভুয়া।’

মমতা আরও বলেন, ‘তৃণমূল কংগ্রেস আরেকটি স্বাধীনতা আন্দোলন করবে। আপনারা তৈরি থাকুন।’