ঢাকা, সোমবার ১৬ই সেপ্টেম্বর ২০১৯ , বাংলা - 

বৈঠক বাতিল করার পর তালেবানের হুঁশিয়ারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।ঢাকাপ্রেস২৪.কম

সোমবার ৯ই সেপ্টেম্বর ২০১৯ সকাল ১০:০৪:৪৩

ক্যাম্প ডেভিডে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যে গোপন বৈঠক হওয়ার কথা ছিল প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তা বাতিলের প্রতিক্রিয়ায় তালেবানের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এজন্য আমেরিকাকে আরও ভুগতে হবে।শান্তি আলোচনা বাতিলের পর তালেবান বলেছে, শেষ মুহূর্ত পর‌্যন্ত সবকিছু ভালোভাবে চলছিল। আফগানিস্তানে ১৮ বছরের যুদ্ধ শেষ করার শান্তি আলোচনা বাতিলের জন্য আমেরিকানদের আরো সর্বোচ্চ হারাতে হবে।

ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্ত আফগানিস্তানে থাকা মার্কিন নাগরিকদের জীবন বিপন্নের কারণ হবে বলেও হুমকি দিয়েছে তালেবান।আফগানিস্তানে তালেবানদের সর্বশেষ হামলায় একজন মার্কিন সৈন্য নিহত জেরে সংগঠনটির সঙ্গে শান্তি আলোচনা বাতিল করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ক্যাম্প ডেভিডে তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের এ গোপন বৈঠক হওয়ার কথা ছিল।

গেল সপ্তাহে তালেবানের সঙ্গে একটি খসড়া শান্তি চুক্তির ব্যাপারে একমত হয়েছিল তালেবান ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।এই প্রক্রিয়ার মধ্যে গত বৃহস্পতিবার আফগানিস্তানের কাবুলে এক হামলায় ১ জন মার্কিন সৈন্যসহ ১২ জন নিহত হয়। এই হামলার দায় স্বীকার করেছে তালেবান।

গোপন বৈঠক বাতিলের বিষয়ে এক টুইট বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, রোববারই ক্যাম্প ডেভিডে তালেবানের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে গোপন বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনকভাবে তারা মিথ্যা চাপ সৃষ্টির জন্য কাবুলে এক হামলা আমাদের একজন মহান সৈন্যকে হত্যা করে এবং আরও ১১ জন নিহত হয়। এ ঘটনায় আমি তাৎক্ষনিকভাবে বৈঠক এবং শান্তি আলোচনা বাতিল করেছি।

টুইটারে ট্রাম্প আরও বলেন, দরকষাকষিতে তাদের শক্ত অবস্থান বোঝাতে কি ধরনের লোকেরা এভাবে বহু মানুষকে হত্যা করতে পারে। তারা এটিকে খারাপের দিকে নিয়ে গেল। এ রকম গুরুত্বপূর্ণ শান্তি আলোচনার মধ্যে তারা এ রকম হামলা করতে পারে না। এমনকি তারা ১২ জন নিরীহ মানুষকে হত্যাও করেছে। সম্ভবত তাদের অর্থবহ শান্তি ‍চুক্তি করার ক্ষমতা নেই। আরও কত দশক তারা যুদ্ধ করতে চায়?

তালেবানের মুখপাত্র জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ বিবৃতিতে বলেছেন, শান্তিচুক্তি স্বাক্ষর ও ঘোষণা বিষয়ে দুই পক্ষ থেকে জোর প্রস্তুতি চলছিল। হঠাৎ মার্কিন প্রেসিডেন্ট তা ভেস্তে দিলেন।তিনি বলেন, এর মধ্যে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র শান্তিতে বিশ্বাসী নয় তা আবারও প্রকাশ পেল।

শান্তি আলোচনা থেকে বেরিয়ে যাওয়াকে যুক্তরাষ্ট্রের অভিজ্ঞতা ও পরিপক্কতার অভাব বলেও মন্তব্য করেন তালেবান মুখপাত্র।জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, যুদ্ধের পরিবর্তে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ছিলাম। এখন দেশ থেকে বিদেশি দখলদারি শেষ না হওয়া পর‌্যন্ত আমরা সন্তুষ্ট হব না।

শান্তি চুক্তির আওতায় যুক্তরাষ্ট্র ২০ সপ্তাহের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে ৫ হাজার ৪০০ সৈন্য প্রত্যাহার করে নেওয়ার প্রস্তাব ছিল। আফগানিস্তানে এখন ১৪ হাজার মার্কিন সৈন্য রয়েছে।একটি খসড়া শান্তি শান্তি চুক্তির ব্যাপারেও দুই পক্ষ এক মত হয়েছিল। কিন্তু এখন তা আবার অনিশ্চিত হয়ে পড়লো।আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম বিবিসি ও রয়টার্স এসব কথা জানায়।