ঢাকা, সোমবার ২৭শে মে ২০১৯ , বাংলা - 

প্রোডাক্ট ব্যবহার করে কী অবস্থা মহিলার!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।ঢাকাপ্রেস২৪.কম

সোমবার ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ রাত ১১:২৪:৩১

নিজেকে সুন্দর দেখতে কে না ভালবাসে। সুন্দর হওয়ার আশায় অনেকেই কৃত্রিম সৌন্দর্যায়ন পণ্যের উপর নির্ভরশীল। কিন্তু কৃত্রিম সেই সব পণ্যের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে। তাই সেগুলি ব্যবহারের ঝুঁকি থেকেই যায়। সম্প্রতি ‘বোটক্স থেরাপি’ করাতে গিয়ে ব্রিটেনের এক মহিলার ঠোঁট ফুলে ঢোল। সেই মহিলার ভাইরাল হওয়া ছবি বিশ্বের দরবারে তুলে ধরেছে কৃত্রিম সৌন্দর্যায়ন পণ্যের ক্ষতিকর দিকটি।

ইংল্যান্ডের লেস্টার সিটির বাসিন্দা র‌্যাচেল ন্যাপিয়ের সম্প্রতি ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন। সেই পোস্টে বোটক্স থেরাপির পাশ্বপ্রতিক্রিয়ায় তাঁর ঠোঁটের কী ভয়ানক অবস্থা হয়েছে সে কথাই তুলে ধরেছেন তিনি। কৃত্রিম সৌন্দর্যায়ন পণ্যের ভুক্তভোগী হয়ে অন্যদের তা ব্যবহার না করারও পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

একটি বিউটিফিকেশন ক্লিনিকে গিয়ে নিজের ঠোঁটে থাকা ওই মাংসপিণ্ডকে সমান করতে আশ্রয় নিয়েছিলেন বোটক্স থেরাপির। সেজন্য তাঁর কপালে দেওয়া হয় ইনজেকশন। বলা হয় এতেই তাঁর ঠোঁটে থাকা অতিরিক্ত মাংসপিন্ডের সমস্যা ঠিক হয়ে যাবে। তাঁর বন্ধু বিউটিশিয়ানকে বিশ্বাস করে ওই থেরাপির আশ্রয় নিয়েছিলেন।

কিন্তু ইনজেকশন নিয়ে বাড়ি ফেরার পরই শুরু হয় যন্ত্রণা। সেই সঙ্গে ফুলতে শুরু করে তাঁর ঠোট। এরপর তাঁর ঠোঁট ফুলে প্রায় বেলুনের আকার নেয়। তখন সেই বিউটিশান বন্ধুকে ফোন করলে সে বরফ লাগানোর পরামর্শ দেয়। কিন্তু যন্ত্রণা না কমায় বাধ্য হয়ে তিনি হাসপাতালে যান।

এরপর তিনি একটি পিটিশনও ফাইল করেছেন তিনি। যে সমস্ত বিউটি ক্লিনিকে ডাক্তার ব্যতীত অন্যরা ইনজেকশন দেয় তাদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ব্রিটেনের পার্লামেন্টের কাছে পিটিশনের মাধ্যমে আবেদন জানিয়েছেন তিনি। প্রচুর মানুষ তাঁর আবেদনে সাড়া দিয়ে সইও করেছেন ওই পিটিশনে।

এখন দেখার র‌্যাচেলের এই অবস্থা দেখার পরও কতজন কৃত্রিম সৌন্দর্যায়ন পণ্য ব্যবহারের আগে তার ক্ষতিকর দিক নিয়ে পর্যালোচনা করেন সেটাই দেখার।